খুদে হাতে উদ্ভাবন

khude-abহঠাৎ বিপদে ঘড়িতে একটা বোতাম চেপেই পাওয়া যাবে সাহায্য, অনলাইনে প্রোগ্রামিং সংকেত পরীক্ষা করবে এক সফটওয়্যার, আর রোবট কাজ করবে আপনার চাহিদামতো—এই তিনটি উদ্ভাবন এসেছে তিন খুদে বিজ্ঞানীর হাত ধরে। রাজধানীর ইউনিভার্সিটি অব এশিয়া প্যাসিফিকে (ইউএপি) ২৩ ও ২৪ সেপ্টেম্বর অনুষ্ঠিত হয়েছে বিএএফ-এসপিএসবি শিশু-কিশোর বিজ্ঞান কংগ্রেস ২০১৬। সেখানে তথ্যপ্রযুক্তিভিত্তিক এ তিনটি প্রকল্প পুরস্কারও পেয়েছে।

রাস্তায় একা হেটে যাচ্ছেন, ঠিক এমন সময় ছিনতাইকারীর কবলে পরলেন অথবা কোন ইভটিজার এসে আপনাকে টিজ করা শুরু করলো। সেই মুহুর্তে কী করবেন আপনি? ঠিক এরকম পরিস্থিতিতে সাহায্য করার জন্য মুমিনুন্নিসা সরকারী মহিলা কলেজের দ্বাদশ শ্রেণীর শিক্ষার্থী রিয়াজুল জান্নাত রিয়া ডিজাইন করেছে ‘সেফটি মেট’। সদ্য শেষ হওয়া শিশু কিশোর বিজ্ঞান কংগ্রেস ২০১৬ এ রিয়ার এই ডিজাইনটি সিনিয়র ক্যাটগরিতে পুরষ্কার পেয়েছে।

সেফটি মেট আসলে একটি ঘড়ি যা একটু আলাদাভাবে ডিজাইন করা হয়েছে। গুরুত্বপূর্ণ পরিস্থিতিতে ঘড়ির একটি বিশেষ বাটনে চাপ দিলেই ঘড়িটি আক্রমণকারীর দিকে কেমিক্যাল স্প্রে করবে, ছবি তুলতে থাকবে এবং সেই সাথে ঘড়ির জিপিএস সিস্টেম নিকটস্থ থানায় আক্রমণের জায়গা চিহ্নিত করে পাঠিয়ে দিবে। পুরষ্কার পেয়ে উচ্ছসিত রিয়া জানায়, “প্রত্যেকটি মানুষের এবং বিশেষভাবে নারীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করে নিরাপদ বাংলাদেশ গড়াই তার লক্ষ্য।”

বরগুনার আমতলি থেকে দশম শ্রেণীর শিক্ষার্থী আতিয়াব জোবায়ের পূর্ণ এসেছিল তার প্রকল্প “লাইট আর্কিটেকচার অনলাইন জাজ” নিয়ে। নিজের প্রকল্প নিয়ে স্বপ্নাতুর পূর্ণ বলে, “এখন পর্যন্ত এটি একটি কন্টেস্ট হোস্টিং প্ল্যাটফর্ম। একে পূর্ণাঙ্গ প্রোগ্রামিং প্ল্যাটফর্ম হিসেবে তৈরি করে দেশে দক্ষ কম্পিটিটিভ প্রোগ্রামার তৈরি করে বিশ্বে বাংলাদেশের নাম উজ্জ্বল করতে চাই।”

‘লাইট আর্কিটেকচার অনলাইন জাজ’ নামে এই প্রকল্পটি আসলে একটি ওয়েব অ্যাপ যা সাধারণ ওয়ার্ডপ্রেস বা জুমলার মতো ৫-১০ মিনিটের মধ্যে ইন্সটল করে যেকোন লিনাক্স সার্ভারে চালানো যায় এবং জাজিং আর্কিটেকচার অনেক বেশি সহজ। বাজারে প্রচলিত সফটওয়্যারগুলোর প্রায় ৭ ভাগের ১ ভাগ সাইজের এই ওয়েব অ্যাপটি যেকোন কম্পিউটারে ইন্সটল করা যায়। এই প্রজেক্টের জাজিং সিস্টেম অন্যান্য জাজিং সিস্টেম এর তুলনায় অনেক হালকা বলে এর নামে ‘লাইট আর্কিটেকচার’ শব্দযুগল রয়েছে।

দিনশেষে পূর্ণর এই প্রকল্পটি নির্বাচিত হয়েছে শিশু কিশোর বিজ্ঞান কংগ্রেস ২০১৬ এর সেরা প্রজেক্ট হিসেবে- প্রজেক্ট অফ দ্যা কংগ্রেস। পুরস্কার পেয়ে পূর্ণর চোখে মুখে তখন খুশীর ঝলকানি। স্বপ্ন যে তার সত্যি হবার পথে!

বগুড়া জিলা স্কুল থেকে আসা আজমায়ীন আকমল ও তার দল একটি রোবট বানিয়েছে যা হাতের ইশারায় পরিচালনা করা যায়! এই রোবটটিকে বিভিন্ন ঝুঁকিপূর্ণ বা দুর্গম এলাকায় পাঠানো যাবে যেখানে মানুষের পক্ষে যাওয়া সম্ভব না। গুরুত্বপূর্ণ পরিস্থিতিতে এটির রোবটিক আর্ম এর সাহায্যে দুর্গম জায়গা থেকে কোনকিছু উদ্ধারের কাজেও রোবটটিকে ব্যবহার করা যাবে। আজমায়ীন এর এই প্রজেক্টটি জুনিয়র ক্যাটাগরিতে পুরস্কার পেয়েছে। সে ষষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্র। তার দলের অন্য দুজন সদস্য আজমল ফুয়াদ আলম ও সায়মা ইসলাম। আজমায়ীন জানায় ভবিষ্যতে সে মেকাট্রনিক্স এবং রোবটিক্স নিয়ে পড়াশুনা করতে চায়।

SHARE