আইপিএলে মাঠে নেমে পড়লেন মোস্তাফিজ

মঙ্গলবার দেশ ছেড়েছেন কাটার মাস্টার। এবারের আইপিএলে তার খেলা নিয়ে নানা অনিশ্চয়তার কথা শোনা গেলেও ঠিকই দ্বিতীয়বারের মতো ভারতে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগে খেলতে সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদে যোগ দিয়েছেন। শুধু তাই নয়, মুম্বাইয়ে গিয়ে প্রতিপক্ষ মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের মাঠ ওয়াংখেড়েতেই এবারের আসরে অভিষেক হলো কাটার মাস্টারের। ২১ বছরের বিস্ময় বাঁহাতি বোলার বুধবার রাত সাড়ে আটটায় শুরু ম্যাচে খেলছেন। রোহিত শর্মা টস জিতেছেন, ডেভিড ওয়ার্নার হেরেছেন। টস হেরে তাই মোস্তাফিজদের দল ব্যাটিংয়ে নামছে। টসের সময় ফিজকে এই ম্যাচ থেকে পাওয়ার কথা বলতে গিয়ে সানরাইজার্সের অধিনায়ক ওয়ার্নারকে দেখালো দারুণ খুশি।

জাতীয় দলের সাথে ব্যস্ততা ও বিশ্রামের কারণে দশম আইপিএলের প্রথম দুটি ম্যাচ মিস করেছেন দ্য ফিজ। তবে গেলবারের চ্যাম্পিয়ন সানরাইজার্স যে তাদের ফেভারিট রহস্যময় ফাস্টবোলারকে পেয়ে আরো শক্তিশালী হয়ে উঠল তা তো চোখ বুঝেই বলে ফেলা যায়। এবার আরেক অমিত প্রতিভাবান আফগান লেগ স্পিনার রশিদ খানের সাথে জুটি বেধে মোস্তাফিজ কি করেন তা দেখার। এবারের আসরের অন্যতম সেরা নবীন খেলোয়াড় রশিদ এর মধ্যে শিকার করে ফেলেছেন ৫ উইকেট।

মোস্তাফিজকে ছাড়াই অবশ্য ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন সানরাইজার্সের যাত্রাটা হয়েছে দারুণ। নিজেদের প্রথম দুই ম্যাচেই জিতেছে। রানরেটেও এগিয়ে থাকায় পয়েন্ট তালিকায় সানরাইজার্সই সবার উপরে। মোস্তাফিজকে তাই এবার শুরুই করতে হচ্ছে অন্য রকম একটা চ্যালেঞ্জ নিয়ে। সানরাইজার্সের জয়রথ ধরে রাখার চ্যালেঞ্জ। ‘দ্য ফিজ’ পারবেন এই চ্যালেঞ্জে জয়ী হতে? গত বছর প্রথমবারের মতো আইপিএলে খেলতে গিয়েই বাজিমাত করেন মোস্তাফিজ। ১৬ ম্যাচে ১৭ উইকেট নিয়ে সানরাইজার্সকে প্রথম আইপিএল শিরোপা উপহার দিতে রেখেছিলেন বড় ভূমিকা। মোস্তাফিজ নিজে জিতে নিয়েছিলেন টুর্নামেন্টের সেরা উদীয়মান খেলোয়াড়ের পুরস্কার। এবার তাই তার উপর প্রত্যাশার চাপটা বেশি।

গত বছর শিরোপা জয়ের পথে মুম্বাইকে হোম এবং অ্যাওয়ে দুই ম্যাচেই হারিয়েছিল সানরাইজার্স। মুম্বাইয়ের বিপক্ষে সাফল্যের সেই ধারাটা এবারও কী ধরে রাখতে পারবে সানরাইজার্স? প্রশ্নটা একটু ঘুরিয়ে এভাবেও করা যায়, দলের জয়ের ধারাটা ধরে রেখে মোস্তাফিজ পারবেন মুম্বাইকে আরেকবার পরাজয়ের হতাশা উপহার দিতে? গত বছর মুম্বাইয়ের বিপক্ষে দুটি জয়েই যে বড় ভূমিকা ছিল তার।

সব মিলে মুম্বাই-সানরাইজার্সের লড়াইয়ে ৪-৪ সমতা। তবে নিজেদের ঘরের মাঠ ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামে দুবারের সাক্ষাতেই জয়ী মুম্বাই। সানরাইজার্সের জন্য ভয়ের কারণ হলো, বুধবারের ম্যাচটাও মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের পয়া ভেন্যু সেই ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামেই। তবে হতাশার সেই অতীত নিয়ে মোস্তাফিজ-রশিদের একদমই ভাবার কথা নয়। কারণ রশিদ তো ননই, মোস্তাফিজও মুম্বাইয়ের কাছে সানরাইজার্সের সেই হার দেখেননি। তিনি বরং শুধু দলের জয়েরই স্বাক্ষী। বুধবারও নিশ্চয় সেরকমই চাইবেন মোস্তাফিজ!

SHARE