প্রযুক্তি ধ্বংস ডেকে আনছে?

ফেসবুকের সাবেক ব্যবস্থাপক অ্যান্তনিও গর্সিয়া মার্টিনেজ। তিনি সিলিকন ভ্যালিতে বহু বছর ধরে কাজ করেছেন। তিনি মনে করেন, প্রযুক্তি এত দ্রুত বিকশিত হচ্ছে যে তা বিশ্বের শৃঙ্খলা নষ্ট করে দেবে। প্রযুক্তির বিরুদ্ধে বিদ্রোহ করবে মানুষ।

মার্টিনেজ বলেন, ‘আগামী ৩০ বছরের মধ্যে বিশ্বের অর্ধেক মানুষ কর্মহীন হয়ে পড়বে। তখন একটি বিপ্লব ঘটতে পারে।

যুক্তরাষ্ট্রের সানফ্রান্সিসকোর দক্ষিণ-পূর্ব উপকূলে এক শিল্পাঞ্চলের নাম সিলিকন ভ্যালি। সিলিকন ভ্যালি বিশ্বের নেতৃস্থানীয় উচ্চপ্রযুক্তির বাণিজ্যিক এলাকা। বিশ্বের বড় বড় সফটওয়্যার, ইলেকট্রনিকস পণ্য নির্মাতা প্রতিষ্ঠানের অধিকাংশই এখানে অবস্থিত। সিলিকন ভ্যালির প্রযুক্তিবিদদের প্রতিশ্রুতি হলো আরও ভালো বিশ্ব তৈরি করা। আর এই প্রযুক্তিই কিনা সবকিছুর ধ্বংস ডেকে আনবে!

সিলিকন ভ্যালিতে কর্মরত সাবেক কর্মকর্তা মার্টিনেজ মনে করেন, সামনে কি দিন আসছে তা তিনি দেখতে পাচ্ছেন। তিনি মনে করেন, প্রযুক্তি কীভাবে ব্যাপক হারে মানুষের পেশার ওপর হুমকি ডেকে আনবে তার সাক্ষী হচ্ছেন তিনি। মার্টিনেজ বলেন, ‘দেখুন, আমি ভবিষ্যৎ দেখতে পাচ্ছি।…পাঁচ থেকে ১০ বছরের মধ্যে কি ঘটতে যাচ্ছে আমি তা দেখতে পাচ্ছি। আপনি বিশ্বাস নাও করতে পারেন। তবে এটা ঘটবে। চালকবিহীন গাড়ির মতোই প্রযুক্তিগুলো মানুষকে কর্মহীন করে দেবে।’

ভবিষ্যতে কী ধরনের ঝুঁকি রয়েছে, সে ব্যাপারে মার্টিনেজ বলেন, এই দেশে (যুক্তরাষ্ট্র) সব নারী-পুরুষ ও শিশুদের জন্য ৩০ কোটি অস্ত্র রয়েছে। বিশেষ করে যারা অর্থনৈতিকভাবে বাস্তুচ্যুত তাদের কাছেও অস্ত্র রয়েছে। কাজেই সহিংস বিদ্রোহ হতে পারে। তিনি বলেন, ‘আপনি ভাবতেও পারবেন না, আমরা প্রযুক্তি ও রাজনীতির একটি প্রতিযোগিতার মধ্যে রয়েছি। এবং প্রযুক্তিবিদেরাই বিজয়ী হচ্ছে। তারা এগিয়ে।

SHARE